ঢাকা ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo পীরগঞ্জে ভোটগ্রহণ কাল, কর্মকর্তা নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ Logo বিরামপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক রচনা ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২০২৪ অনুষ্ঠিত , Logo ২৪ ঘন্টার মধ্যে রেজিয়া হত্যার রহস্য উদঘাটন এবং ০২ আসামি গ্রেফতার Logo বিরামপুরে পুলিশ বক্স ও বিট পুলিশিং কার্যালয়ের উদ্বোধন Logo স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে, স্মার্ট শিক্ষক হতে হবেঃ–এমপি মাজহারুল ইসলাম Logo ঠাকুরগাঁওয়ের আকচা ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা Logo ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের অভিযানে ৬ জন গ্রেফতার – মাদক উদ্ধার ! Logo তাহিরপুরে দুপুর গড়ালেও খোলা হয়নি বিদ্যালয়, সাংবাদিকদের গালিগালাজ করেন সহকারী শিক্ষক Logo রাণীশংকৈলে সেই স্বর্ণের পাহাড় ঘিরে রেখেছে পুলিশ, মাটি খুঁড়তে গেলেই গুনতে হচ্ছে জরিমানা Logo শিশুর মুখে সিগারেট, পুরুষাঙ্গে ইট বেঁধে ভিডিও, গ্রেপ্তার তিন কিশোর
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
জনপ্রিয় দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম... উত্তরবঙ্গের গণমানুষের ঠিকান এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশ জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও এর জন্য, দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারি কলেজে একযোগে সাংবাদিক নিয়োগ চলছে। আপনি যদি সৎ ও কর্মঠ হোন আর অনলাইন গনমাধ্যমে কাজ করতে ইচ্ছুক তবে আবেদন করতে পারেন। আবেদন পাঠাবেন নিচের এই ঠিকানায় ajkerthakurgaon@gmail.com আমাদের ফেসবুল পেইজঃ https://www.facebook.com/ajkerthakurgaoncom প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন মোবাইল : ০১৮৬০০০৩৬৬৬

রেস্তোরাঁয় খাবার নয়, চড় খেতে এসে পয়সা খরচ

অনলাইন নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:২২:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / 113
আজকের ঠাকুরগাঁও অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রেস্তোরাঁর এসে খাবার নয়, চেয়ারে বসে গাল এগিয়ে দিচ্ছেন অতিথিরা। আর ওয়েটার এসে সেই গালে বসাচ্ছেন একের পর এক চড়। না, সেখানে এসে তারা দোষের কিছু করেননি; বরং তাদের ইচ্ছাতেই এই চড়-কাণ্ডের আয়োজন।

এই চড়-কাণ্ডের আরো অবাক করা বিষয় হলো, চড় খেতে রীতিমতো পয়সা খরচ করছেন আগত অতিথিরা।

বিচিত্র এই কাণ্ড দেখা গেছে এক্সে (সাবেক টুইটার) একটি ভিডিওতে। তাতে বলা হয়েছে, ‘সাচিহোকো-ইয়া’ নামের ওই রেস্তোরাঁ জাপানের নাগোয়া শহরে। সেখানে খাবারের মেন্যুতে রয়েছে ‘নাগোয়া লেডিস স্ল্যাপ’ নামের বিশেষ একটি পদ। ওই পদের জন্য ৩০০ ইয়েন খরচ করলেই দেদারসে চড় খাওয়া যাবে। তবে পছন্দের কারো হাতে চড় খেতে চাইলে খসাতে হবে অতিরিক্ত ৫০০ ইয়েন।

শুধু জাপানি নারী-পুরুষ নন, বিদেশি পর্যটকদের কাছেও নাকি ঐ রেস্তোরাঁয় চড় বেশ উপভোগ্য। ‘সেভ ইউর মানি’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে বলা হয়েছে, নারী ওয়েটাররা যত জোরে চড় মারেন, রেস্তোরাঁর অতিথিরা তত আনন্দ পান। তারা রাগ তো দেখানই না, বরং তাদের দেখে আরো তরতাজা মনে হয়। অনেকে তো আবার চড় মারা ওয়েটারকে ধন্যবাদও জানান।

২০১২ সালে এই ‘চড় সেবা’ চালু করেছিল সাচিহোকো-ইয়া। সে সময় এটি তুমুল সাড়া ফেলেছিল। চড় খেতে রেস্তোরাঁয় ভিড় জমাতে শুরু করেন বহু মানুষ। প্রথম দিকে মাত্র একজন নারী ওয়েটারই এ কাজে হাত লাগিয়েছিলেন। পরে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আরও কয়েক নারীকে নিয়োগ দেয় রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ।

তবে রেস্তোরাঁয় চড়ের ভিডিওগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। শেষমেশ বাধ্য হয়ে চড়ের আয়োজন বন্ধ করে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এক্সে একটি পোস্টে তারা অনুরোধ করেছে, চড় খাওয়ার লোভে কেউ যেন সেখানে আর না যায়। কারণ, এটি বন্ধ করা হয়েছে। আর নতুন করে যেসব ভিডিও ছড়িয়েছে, তা পুরোনো। তবে ভবিষ্যতে আবার কখনো অর্থের বিনিময়ে চড় চালু হবে কি না, তা ওই পোস্টে জানানো হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

রেস্তোরাঁয় খাবার নয়, চড় খেতে এসে পয়সা খরচ

আপডেট সময় : ০৭:২২:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩

রেস্তোরাঁর এসে খাবার নয়, চেয়ারে বসে গাল এগিয়ে দিচ্ছেন অতিথিরা। আর ওয়েটার এসে সেই গালে বসাচ্ছেন একের পর এক চড়। না, সেখানে এসে তারা দোষের কিছু করেননি; বরং তাদের ইচ্ছাতেই এই চড়-কাণ্ডের আয়োজন।

এই চড়-কাণ্ডের আরো অবাক করা বিষয় হলো, চড় খেতে রীতিমতো পয়সা খরচ করছেন আগত অতিথিরা।

বিচিত্র এই কাণ্ড দেখা গেছে এক্সে (সাবেক টুইটার) একটি ভিডিওতে। তাতে বলা হয়েছে, ‘সাচিহোকো-ইয়া’ নামের ওই রেস্তোরাঁ জাপানের নাগোয়া শহরে। সেখানে খাবারের মেন্যুতে রয়েছে ‘নাগোয়া লেডিস স্ল্যাপ’ নামের বিশেষ একটি পদ। ওই পদের জন্য ৩০০ ইয়েন খরচ করলেই দেদারসে চড় খাওয়া যাবে। তবে পছন্দের কারো হাতে চড় খেতে চাইলে খসাতে হবে অতিরিক্ত ৫০০ ইয়েন।

শুধু জাপানি নারী-পুরুষ নন, বিদেশি পর্যটকদের কাছেও নাকি ঐ রেস্তোরাঁয় চড় বেশ উপভোগ্য। ‘সেভ ইউর মানি’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে বলা হয়েছে, নারী ওয়েটাররা যত জোরে চড় মারেন, রেস্তোরাঁর অতিথিরা তত আনন্দ পান। তারা রাগ তো দেখানই না, বরং তাদের দেখে আরো তরতাজা মনে হয়। অনেকে তো আবার চড় মারা ওয়েটারকে ধন্যবাদও জানান।

২০১২ সালে এই ‘চড় সেবা’ চালু করেছিল সাচিহোকো-ইয়া। সে সময় এটি তুমুল সাড়া ফেলেছিল। চড় খেতে রেস্তোরাঁয় ভিড় জমাতে শুরু করেন বহু মানুষ। প্রথম দিকে মাত্র একজন নারী ওয়েটারই এ কাজে হাত লাগিয়েছিলেন। পরে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আরও কয়েক নারীকে নিয়োগ দেয় রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ।

তবে রেস্তোরাঁয় চড়ের ভিডিওগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। শেষমেশ বাধ্য হয়ে চড়ের আয়োজন বন্ধ করে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এক্সে একটি পোস্টে তারা অনুরোধ করেছে, চড় খাওয়ার লোভে কেউ যেন সেখানে আর না যায়। কারণ, এটি বন্ধ করা হয়েছে। আর নতুন করে যেসব ভিডিও ছড়িয়েছে, তা পুরোনো। তবে ভবিষ্যতে আবার কখনো অর্থের বিনিময়ে চড় চালু হবে কি না, তা ওই পোস্টে জানানো হয়নি।