ঢাকা ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ছেলেকে পেটানোর পর মাকে পিটিয়ে গাছে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ স্বজনদের Logo পীরগঞ্জ ওসির ফোন নম্বর ক্লোন করে প্রার্থীদের কাছে চাঁদা দাবি, ফেসবুকে ওসির সর্তক পোস্ট Logo রাতে হোটেলে খেতে গিয়ে দায়িত্ব হারালেন ঠাকুরগাঁওয়ের এক প্রিজাইডিং কর্মকর্তা… Logo তীব্র গরম উপেক্ষা করে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন প্রার্থীরা Logo ঠাকুরগাঁওয়ের গড়েয়ায় জিংক সমৃদ্ধ চালের উপকারিতা বিষয়ে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান Logo ঠাকুরগাঁওয়ে টেকসই নদী ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা Logo বালিয়াডাঙ্গীতে বিদুৎপৃষ্ঠে কলেজছাত্রের মৃত্যু Logo ঠাকুরগাঁওয়ে বক্ষব্যাধি ক্লিনিকের এক্সরে মেশিনটি প্রায় ১৫ বছর ধরে নষ্ট হয়ে পড়ে রয়েছে Logo ঠাকুরগাঁওয়ে নিবির হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ Logo তাহিরপুরে স’ মিলে আগুন; কয়েক লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
জনপ্রিয় দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম... উত্তরবঙ্গের গণমানুষের ঠিকান এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশ জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও এর জন্য, দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারি কলেজে একযোগে সাংবাদিক নিয়োগ চলছে। আপনি যদি সৎ ও কর্মঠ হোন আর অনলাইন গনমাধ্যমে কাজ করতে ইচ্ছুক তবে আবেদন করতে পারেন। আবেদন পাঠাবেন নিচের এই ঠিকানায় ajkerthakurgaon@gmail.com আমাদের ফেসবুল পেইজঃ https://www.facebook.com/ajkerthakurgaoncom প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন মোবাইল : ০১৮৬০০০৩৬৬৬

এম এ মোমিন এর কবিতা জীবনে প্রাণের সঞ্চার

লেখক: এম এ মোমিন
  • আপডেট সময় : ০২:১৮:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / 56
আজকের ঠাকুরগাঁও অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জীবনে প্রাণের সঞ্চার
-লেখক: এম এ মোমিন

(ঠাকুরগাঁও গণমাধ্যম কর্মী কল্যাণ ট্রাস্ট এর সকলের প্রতি উৎসর্গ করা হলো)

কেবলি জীবনে প্রাণের সঞ্চার, চালিয়েছে মোদের এক সাথে।
লক্ষ্য ঠিক রেখে, ক্লান্ত শরীরে, সুশীল অজানা এক স্মৃতি পথে।

কত উদার, মনোরম সবুজের সমারোহে বিস্তীর্ণ নদীপথ।
সম্মুখ অভিযানে এগিয়েছি সামনে, রুধিতে পারেনি কেহ এই গতিপথ।

বাধিয়েছে জোট, হয়নি বিভেদ, সবে ছিল ঐক্যমত।
ফেলে পিছু টান, জয় যার প্রাণ, রুদ্ধতা নয় তারপথ।

হয়ে হন্ন্যে ফিরেছি-অরণ্যে! বাঘ কিংবা সিংহের পেতে মন।
পেয়েছি হরিণ, কুমিরের দল, অরণ্য নদে অদ্ভুত জেলে জীবন!

“পদ্মা নদীর মাঝি ” যে এরা, দ্বার তুলে মাস্তুলে ।
জোয়ার কিবা ভাটাতে এরা, দ্বার ধরে সব প্রতিকূলে।

হও বেগবান, হোক জুয়ার ভাটার টান, এক হয়ে চালাও অভিযান।
তোমার ক্যামেরা-কাগজে জেলেরে দাও অধিকার, ফিরে পাক সেও প্রান।

রুধিবে তোমায় কে, দুর্ভেদ্য এই সাধ্য কার।
ধাপে ধাপে তুমি হয়েছো উঁচু, পুরে পুরে হয়েছে অঙ্গার।
তোমরা দুর্ভেদ্য, অসীম, যুগের সেরা সৈনিক।
তোমাদের কলম অদম্য, দুর্বার, তোমরা নির্ভীক।
তোমরাই তো রুখে দাও জাতির সব ক্লেশ, হে আত্ম মানবতার নিবেদিত আয়না।
কত নির্মম, ভয়াল এ পেশা তবুও তো কর্ণপাত করোনা অপরাধীর বায়না।

তুমিই তো সে, জাতিকে বাঁচায় যে, যার কলমে বহু ধার।
হাতে রেখে হাত, করে নাও শপথ, এ বন্ধন যেন কভু নাহি মানে হার।

বানরের দল, ছিল না শৃঙ্খল, খাবার নিতে চাই কেড়ে!
হয়ে জাগরণ, লাঠি হাতে কোন জন, ওমনি ভেগে যায় সব তেড়ে।

কতো কার্গো জাহাজ, হয়ে আছে ভাঁজ ভাঁজ, নৌকা টলার তার কাছে কিছু নয়‌।
আঁকা বাঁকা নদী, চলছে অবধি ,ঢেউয়ের তালে কারো লেগে যায় ভয়।

ভুল যদি ভাই, করে ফেলে হায়!ক্ষমা কর, করে নিও আপোষ।
অমর কেউ নয়, কখন কি হয়? এ জীবন আজও কারো মানে নি পোষ।

এই প্রেম-প্রীতি, কত ভালোবাসা, কত স্মৃতি, আজীবন যেন থাকে টিকে।
নিজেকে বিলিয়ে অমর হওয়া যায়, তার নাম থাকে দিকে দিকে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বার্তা সম্পাদক

দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও এর বার্তা সম্পাদক
ট্যাগস :

এম এ মোমিন এর কবিতা জীবনে প্রাণের সঞ্চার

আপডেট সময় : ০২:১৮:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জীবনে প্রাণের সঞ্চার
-লেখক: এম এ মোমিন

(ঠাকুরগাঁও গণমাধ্যম কর্মী কল্যাণ ট্রাস্ট এর সকলের প্রতি উৎসর্গ করা হলো)

কেবলি জীবনে প্রাণের সঞ্চার, চালিয়েছে মোদের এক সাথে।
লক্ষ্য ঠিক রেখে, ক্লান্ত শরীরে, সুশীল অজানা এক স্মৃতি পথে।

কত উদার, মনোরম সবুজের সমারোহে বিস্তীর্ণ নদীপথ।
সম্মুখ অভিযানে এগিয়েছি সামনে, রুধিতে পারেনি কেহ এই গতিপথ।

বাধিয়েছে জোট, হয়নি বিভেদ, সবে ছিল ঐক্যমত।
ফেলে পিছু টান, জয় যার প্রাণ, রুদ্ধতা নয় তারপথ।

হয়ে হন্ন্যে ফিরেছি-অরণ্যে! বাঘ কিংবা সিংহের পেতে মন।
পেয়েছি হরিণ, কুমিরের দল, অরণ্য নদে অদ্ভুত জেলে জীবন!

“পদ্মা নদীর মাঝি ” যে এরা, দ্বার তুলে মাস্তুলে ।
জোয়ার কিবা ভাটাতে এরা, দ্বার ধরে সব প্রতিকূলে।

হও বেগবান, হোক জুয়ার ভাটার টান, এক হয়ে চালাও অভিযান।
তোমার ক্যামেরা-কাগজে জেলেরে দাও অধিকার, ফিরে পাক সেও প্রান।

রুধিবে তোমায় কে, দুর্ভেদ্য এই সাধ্য কার।
ধাপে ধাপে তুমি হয়েছো উঁচু, পুরে পুরে হয়েছে অঙ্গার।
তোমরা দুর্ভেদ্য, অসীম, যুগের সেরা সৈনিক।
তোমাদের কলম অদম্য, দুর্বার, তোমরা নির্ভীক।
তোমরাই তো রুখে দাও জাতির সব ক্লেশ, হে আত্ম মানবতার নিবেদিত আয়না।
কত নির্মম, ভয়াল এ পেশা তবুও তো কর্ণপাত করোনা অপরাধীর বায়না।

তুমিই তো সে, জাতিকে বাঁচায় যে, যার কলমে বহু ধার।
হাতে রেখে হাত, করে নাও শপথ, এ বন্ধন যেন কভু নাহি মানে হার।

বানরের দল, ছিল না শৃঙ্খল, খাবার নিতে চাই কেড়ে!
হয়ে জাগরণ, লাঠি হাতে কোন জন, ওমনি ভেগে যায় সব তেড়ে।

কতো কার্গো জাহাজ, হয়ে আছে ভাঁজ ভাঁজ, নৌকা টলার তার কাছে কিছু নয়‌।
আঁকা বাঁকা নদী, চলছে অবধি ,ঢেউয়ের তালে কারো লেগে যায় ভয়।

ভুল যদি ভাই, করে ফেলে হায়!ক্ষমা কর, করে নিও আপোষ।
অমর কেউ নয়, কখন কি হয়? এ জীবন আজও কারো মানে নি পোষ।

এই প্রেম-প্রীতি, কত ভালোবাসা, কত স্মৃতি, আজীবন যেন থাকে টিকে।
নিজেকে বিলিয়ে অমর হওয়া যায়, তার নাম থাকে দিকে দিকে।