ঢাকা ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ::
জনপ্রিয় দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও পত্রিকায় আপনাকে স্বাগতম... উত্তরবঙ্গের গণমানুষের ঠিকান এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশ জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও এর জন্য, দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারি কলেজে একযোগে সাংবাদিক নিয়োগ চলছে। আপনি যদি সৎ ও কর্মঠ হোন আর অনলাইন গনমাধ্যমে কাজ করতে ইচ্ছুক তবে আবেদন করতে পারেন। আবেদন পাঠাবেন নিচের এই ঠিকানায় ajkerthakurgaon@gmail.com আমাদের ফেসবুল পেইজঃ https://www.facebook.com/ajkerthakurgaoncom প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন মোবাইল : ০১৮৬০০০৩৬৬৬

তাহিরপুরে দুপুর গড়ালেও খোলা হয়নি বিদ্যালয়, সাংবাদিকদের গালিগালাজ করেন সহকারী শিক্ষক

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:০১:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪
  • / 14
আজকের ঠাকুরগাঁও অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দরজা খুলেনি কোন শিক্ষক । অসহায়ের মতো শিক্ষকদের আসার অপেক্ষায় বসে থাকতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী শিক্ষক হারুনুর রশিদ সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।
সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় এই বিদ্যালয়ের বারান্দায় ছাত্র-ছাত্রীদের বসে থাকতে দেখা যায়। এসময় উপজেলায় কর্মরত শফিকুল ইসলাম নামে এক সাংবাদিক নিজের ফেইসবুকে লাইভ করলে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে এলাকাজুড়ে। লাইভে ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে কথা বলতে দেখা যায় এই সাংবাদিককে। ছাত্র-ছাত্রীরা লাইভে এসে জানায়, শুধু আজকেই এমনটি হয়নি। শিক্ষকরা প্রতিদিন সকাল ১১টার আগে বিদ্যালয়ে আসেননা। আর দুপুর ২টায় বিদ্যালয় ছুটি দিয়ে চলে যান তারা। আজকে প্রধান শিক্ষক না থাকায় তারা (শিক্ষকরা) কেউয়েই আসেননি এখন পর্যন্ত।
এবিষয়ে জানতে চাইলে হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাধব চন্দ্র সরকার বলেন, আমি আজকে আগামী পাঁচ দিনের জন্য উপজেলা সদরে শিক্ষকদের একিভূত ট্রেনিংয়ে আছি। গত কাল আমার ট্রেনিংয়ের বিষয়টি আমার বিদ্যালয়ের বাকি তিন সহকারী শিক্ষককে অবগত করেছি। আমার পরিবর্তে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করবে সহকারী শিক্ষক বিপ্লব মিয়া। তারা তিন জনেরই আজকে বিদ্যালয়ে থাকার কথা। তারা আমি না থাকলেই বিদ্যালয়ে আসতে চায়না। আমি বিদ্যালয়ে না থাকলে এমন অভিযোগ হর হামেশাই পাই।
সহকারী শিক্ষক বিপ্লব মিয়ার কালবেলাকে জানায়, আমি অসুস্থ থাকায় আজকে বিদ্যালয়ে যেতে পারিনি। এবিষয়ে জানতে চেয়ে সহকারী শিক্ষক হারুনুর রশিদকে কালবেলার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কল দিলে তিনি সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে গেলে সাংবাদিককে দেখে নেবেন। ধারেকাছে পেলে সাংবাদিককে মারারও হুমকি দেন।
এবিষয়ে জানতে চেয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল আওয়াল বলেন, হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী তিন শিক্ষক বিদ্যালয়ে সঠিক সময়ে উপস্থিত না হওয়ায় তাদের শোকজ করা হবে। সাংবাদিকদের গালিগালাজ করে থাকলে তার কঠিন বিচার করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বার্তা সম্পাদক

দৈনিক আজকের ঠাকুরগাঁও এর বার্তা সম্পাদক
ট্যাগস :

তাহিরপুরে দুপুর গড়ালেও খোলা হয়নি বিদ্যালয়, সাংবাদিকদের গালিগালাজ করেন সহকারী শিক্ষক

আপডেট সময় : ০৭:০১:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দরজা খুলেনি কোন শিক্ষক । অসহায়ের মতো শিক্ষকদের আসার অপেক্ষায় বসে থাকতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী শিক্ষক হারুনুর রশিদ সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।
সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় এই বিদ্যালয়ের বারান্দায় ছাত্র-ছাত্রীদের বসে থাকতে দেখা যায়। এসময় উপজেলায় কর্মরত শফিকুল ইসলাম নামে এক সাংবাদিক নিজের ফেইসবুকে লাইভ করলে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে এলাকাজুড়ে। লাইভে ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে কথা বলতে দেখা যায় এই সাংবাদিককে। ছাত্র-ছাত্রীরা লাইভে এসে জানায়, শুধু আজকেই এমনটি হয়নি। শিক্ষকরা প্রতিদিন সকাল ১১টার আগে বিদ্যালয়ে আসেননা। আর দুপুর ২টায় বিদ্যালয় ছুটি দিয়ে চলে যান তারা। আজকে প্রধান শিক্ষক না থাকায় তারা (শিক্ষকরা) কেউয়েই আসেননি এখন পর্যন্ত।
এবিষয়ে জানতে চাইলে হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাধব চন্দ্র সরকার বলেন, আমি আজকে আগামী পাঁচ দিনের জন্য উপজেলা সদরে শিক্ষকদের একিভূত ট্রেনিংয়ে আছি। গত কাল আমার ট্রেনিংয়ের বিষয়টি আমার বিদ্যালয়ের বাকি তিন সহকারী শিক্ষককে অবগত করেছি। আমার পরিবর্তে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করবে সহকারী শিক্ষক বিপ্লব মিয়া। তারা তিন জনেরই আজকে বিদ্যালয়ে থাকার কথা। তারা আমি না থাকলেই বিদ্যালয়ে আসতে চায়না। আমি বিদ্যালয়ে না থাকলে এমন অভিযোগ হর হামেশাই পাই।
সহকারী শিক্ষক বিপ্লব মিয়ার কালবেলাকে জানায়, আমি অসুস্থ থাকায় আজকে বিদ্যালয়ে যেতে পারিনি। এবিষয়ে জানতে চেয়ে সহকারী শিক্ষক হারুনুর রশিদকে কালবেলার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কল দিলে তিনি সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে গেলে সাংবাদিককে দেখে নেবেন। ধারেকাছে পেলে সাংবাদিককে মারারও হুমকি দেন।
এবিষয়ে জানতে চেয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল আওয়াল বলেন, হাঁপানীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী তিন শিক্ষক বিদ্যালয়ে সঠিক সময়ে উপস্থিত না হওয়ায় তাদের শোকজ করা হবে। সাংবাদিকদের গালিগালাজ করে থাকলে তার কঠিন বিচার করা হবে।